ফিলিস্তিনিদের রক্ষায় ইরান কেন এখনো ইজরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করছে না?

ফিলিস্তিনিদের রক্ষায় ইরান কেন এখনো ইজরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করছে না?

প্রথম কথা হচ্ছে ইরান সরাসরি ইসরায়েল হামলা করবে না কারন ইসরায়েলে হামলা করলে আমেরিকা সহ নোটোর অনেক দেশকে নিয়ে ইসরায়েল পাল্ট হামলা করবে।যা সামলানোর সক্ষমতা ইরানের নেই!

তবে ইরান কিছু পারমাণবিক কর্মসূচি ঘোষণা করেছে

ইরানের পরমাণু কর্মসূচি

ইরান তার পরমাণু কর্মসূচি পুরোপুরি শান্তিপূর্ণ বেসামরিক কাজে ব্যবহার করা হবে বলে বারবার আশ্বাস দিলেও ইসরায়েল তা বিশ্বাস করে না।

ইসরায়েল নিশ্চিত যে ইরান গোপনে পারমাণবিক যুদ্ধাস্ত্র তৈরি করছে যা ব্যালেস্টিক ক্ষেপাণস্ত্রের মাধ্যমে ব্যবহারযোগ্য হবে।

আমেরিকার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লয়েড অস্টিনের ইসরায়েল সফরের সময় ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বিনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন:

“ইরানের কট্টরপন্থী প্রশাসন যে হুমকি সৃষ্টি করছে, মধ্যপ্রাচ্যের জন্য তা সবচেয়ে ভয়ানক, সবেচয়ে ঝুঁকিপূর্ণ এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হুমকি।”

আসলেই কি ইসরায়েল এবং ইরান কি যুদ্ধ লিপ্ত হবে?

সোজা কথায় এর উত্তর হচ্ছে “না” এর পিছনে কয়েকটি শক্ত কারণ রয়েছে।

ইরানের সাথে রয়েছে শক্তিশালী গ্রুপ যারা ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে রয়েছে।

তারা হল হেজবুল্লাহ এবং ফিলিস্তিনের সামরিক সংগঠন হামাস।

এরপরও যদি যুদ্ধ দুই যুদ্ধে জড়ায় তবে তা হবে ভয়ংকর ধ্বংসাত্মক।

ইসরায়েলের সীমান্তে ইরানের রয়েছে ভারী অস্ত্র, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র। এদিকে ইসরায়েলের রয়েছে শক্তিশালী সামরিক বাহিনী।

এছাড়া বলা হয়, তাদের পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। তাছাড়া সব ধরণের সামরিক সহায়তা দিতে তাদের পাশে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

আর ইসরায়েল ইরানকে সরাসরি হামলা না করার কারন ইসরায়েল এককভাবে ইরানকে হারাতে পারবে কিনা সেটা নিয়ে তারা সন্দিহান।হারাতে পারলেও ইসরায়েলের ও প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হবে।।

আর ইসরায়েল ইরানকে হামলার ক্ষেত্রে আমেরিকা ও ন্যোটোর সর্মথন পাচ্ছে না।

কারন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা মনে করে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানকে দূর্বল করে দিলে সুন্নিরা এককভাবে শক্তিশালী হয়ে যাবে এবং সৌদির আর আমেরিকাকে প্রয়োজন হবে না।

ফলে আমেরিকার আধিপত্য কমে যাবে।

 

এজন্য মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ইরান আক্রমণে সবুজ সংকেত দেখাচ্ছে না।

মধ্যপ্রাচ্যে ক্ষমতার ভারসাম্যের জন্য ইরানের প্রয়োজন এজন্য ইসরায়েল সহ পশ্চিমা জোট রা এখনও সরাসরি ইরানের উপর সামরিক হামলা করে নি।

তবে ভবিষ্যতে যদি ইরান পারমাণবিক বোমা বানানোর দারপ্রান্তে চলে যায় তাহলে কি হয় সেটা বলা যায় না!

Previous Article

Most Popular Topics

Editor Picks